ইন্টারনেট-এর গুরুত্ব বর্ণনা করে একটি মঞ্চ ভাষণ প্রস্তুত কর-ভাষণ

ইন্টারনেট-এর গুরুত্ব বর্ণনা করে একটি মঞ্চ ভাষণ প্রস্তুত কর।

এই আয়ােজনের সম্মানিত সভাপতি, মাননীয় প্রধান অতিথি, সম্মানিত আলােচকবৃন্দ সুধীমণ্ডলীআস্সালামু আলাইকুম। সভ্যতার যে যুগান্তকারী পথপ্রদর্শক পুরাে বিশ্বকে হাতের মুঠোয় এনে আমাদের অগ্রযাত্রাকে বহুগুণে ত্বরান্বিত করেছে সেই মহা বিষ্ময়-এর নাম হলাে ইন্টারনেট। স্বতঃস্ফূর্তভাবে নেটওয়ার্ক-এর পর নেটওয়ার্ক পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী যে মহা যােগাযােগ নেটওয়ার্ক গড়ে ওঠেছে তাই হলাে ইন্টারনেট। জ্ঞান-বিজ্ঞানের চর্চা প্রসারের এই যুগে ইন্টারনেট ছাড়া একটি দিনও আমরা কল্পনা করতে পারি না।

সম্মানিত সুধী

প্রতিনিয়ত ইন্টারনেটের বহুমুখী ব্যবহারে জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চায় প্রসারে এসেছে বিপ্লব বিবর্তন। কিন্তু ইন্টারনেটের জন্ম বেশিদিন আগে নয়। ১৯৬৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগ 'ARPANET' নামে একটি ক্ষুদ্র পরিসরে অভ্যন্তরীণ যােগাযােগ ব্যবস্থা চালু করে। সেখান থেকে সবেগে ত্বরান্বিত হয়ে ইন্টারনেট সারা বিশ্বকে আমাদের সামনে হাজির করেছে। বিজ্ঞান-প্রযুক্তি, জ্ঞান-বিজ্ঞান, চিকিৎসা স্বাস্থ্য, যােগাযােগ, ব্যবসা-বাণিজ্য, গণমাধ্যম ইত্যাদির ব্যবহার এখন পৃথিবীর যে কোনাে প্রান্তে বসেই সম্ভব ইন্টারনেটের কল্যাণে। পৃথিবীর সকল দেশের মানুষের সঙ্গে যােগাযােগের দ্রুততম সহজলভ্য পন্থা হলাে ইন্টারনেট।

সমবেত সুধী

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে ইন্টারনেটের ব্যবহার সম্পর্কে কিছু কথা না বললেই নয়। আমি সংক্ষেপে কিছু দিক উল্লেখ করছি। গােটা বিশ্বে প্রযুক্তির যত ব্যবহার হয়েছে এবং হচ্ছে সেগুলাে সম্পর্কে আমরা অবগত হতে পারছি ইন্টারনেটের কল্যাণে। বিজ্ঞান প্রযুক্তির উন্নয়ন, প্রসার শিক্ষা গ্রহণে আমাদের সর্বোচ্চ সহযােগিতা করছে ইন্টারনেট।

জ্ঞান-বিজ্ঞানের চর্চা এবং প্রসারের সিংহভাগই এখন ইন্টারনেটের হাতে। পৃথিবীর বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যসূচি, রেফারেন্স বুক, লাইব্রেরি এমনকি ক্লাস লেকচারও আমরা সহজে ইন্টারনেটে পাই।

রােগ নির্ণয়, ঔষধ নির্বাচন, ঔষধ প্রস্তুত ইত্যাদি প্রযুক্তি এখন অনেকটাই ইন্টারনেট নির্ভর। টেলিমিডিসিন অনলাইন ডাক্তারি সেবাও সম্ভব করেছে ইন্টারনেট।

ব্যক্তিগত, রাষ্ট্রীয়, সামাজিক, বাণিজ্যিক ইত্যাদি যােগাযোেগ এখন বেশিরভাগই ইন্টারনেট নির্ভর। এক্ষেত্রে -মেইল ও। সামাজিক যােগাযােগ মাধ্যমগুলাে আমাদের ব্যাপকভাবে সহযােগিতা করছে।

-বিজনেস, -কমার্স, ব্যাংকিং ব্যবস্থা ইত্যাদি আন্তর্জাতিক অভ্যন্তরীণ ব্যবসা-বাণিজ্য বিদ্যুৎগতি পেয়েছে ইন্টারনেটের মাধ্যমে। দেশি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের সকল বার্তা এখন ইন্টারনেটেই সহজলভ্য। সকল দেশের পত্র-পত্রিকা গণমাধ্যমে আমরা মুহূর্তে প্রবেশ করতে পারি। ইন্টারনেটই এই অসম্ভবকে সম্ভব করেছে।

প্রিয় সুধী

ইন্টারনেট ব্যবহারের গুরুত্ব প্রয়ােজনীয়তা যেমন রয়েছে তেমনই প্রয়ােজন রয়েছে এর ব্যবহারে সতর্কতা অবলম্বন করার। ইন্টারনেটের প্রতি আসক্তি আমাদের সৃজনশীলতা, নৈতিকতা, নিয়মানুবর্তিতা ইত্যাদি মহান গুণগুলাে চিরতরে ধ্বংস করে দিতে পারে। সামাজিক যােগাযােগ মাধ্যম ব্যবহার করে ছড়িয়ে পড়তে পারে বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসী কার্যক্রম। সুতরাং আমাদের সকলের উচিত সতর্কতার সঙ্গে ব্যবহার করে বিজ্ঞানের এই বিস্ময়কে আমাদের জীবনের ৎকর্ষ সাধনের কাজে লাগানাে।

পরিশেষে সমবেত সুধীমণ্ডলীকে আমার আন্তরিক ধন্যবাদ অভিনন্দন জানিয়ে শেষ করছি।


Share This Post

Post Comments (0)



Latest Post

Suggestion or Complain

সংবাদ শিরোনাম