শীতার্ত মানুষের দুঃসহ জীবন-প্রতিবেদন

শীতার্ত মানুষের দুঃসহ জীবন' শিরােনামে একটি প্রতিবেদন রচনা কর।

প্রতিবেদনের প্রকৃতি          : সংবাদ প্রতিবেদন।

প্রতিবেদনের শিরােনাম       : শীতার্ত মানুষের দুঃসহ জীবন

সরেজমিনে পরিদর্শন         : শীতার্ত মানুষের দুরবস্থার চিত্র, সিরাজগঞ্জ

প্রতিবেদন তৈরির সময়      : সন্ধ্যা :০০টা

তারিখ                       : ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৯

সংযুক্তি                      : শীতার্ত মানুষের দুরবস্থার ছবি- ৫টি

শীতার্ত মানুষের দুঃসহ জীবন

প্রকৃতির অমােঘ নিয়মেই ঋতুর পালাবদল ঘটে থাকে। প্রকৃতির আচরণ কখনাে কখনাে মানুষের অসহায়ত্বকে আরও প্রকট করে তােলে। সম্প্রতি তীব্র শৈত্যপ্রবাহ দরিদ্র জনগােষ্ঠী অধ্যুষিত অঞ্চলে বিরূপ প্রভাব ফেলেছে। প্রচণ্ড শীতের প্রকোপ থেকে আত্মরক্ষার জন্য অনেক হতদরিদ্র মানুষেরই ন্যূনতম শীতবস্ত্র নেই, নেই উপযুক্ত আশ্রয় বা বাসস্থান। হাড়কাঁপানাে শীতে তাদের কাউকে খােলা আকাশের নিচেও রাত্রিযাপন করতে হয়। ছিন্নমূল অসহায় মানুষকে খড়কুটা জ্বালিয়ে শীত মােকাবেলা করার প্রয়াস চালাতে দেখা যায়।

উত্তরবঙ্গের প্রমত্তা যমুনা নদী বিধৌত সিরাজগঞ্জে গত কয়েকদিন ধরে সূর্যের দেখা পাওয়া যায়নি। ঘন কুয়াশার প্রকোপ কিছুট কমলেও হিমেল প্রবাহ যেন মানুষের শরীরকে অচল করে দিয়েছে। ঘরে-বাইরে কোথাও মানুষের স্বস্তি নেই। শহরে লােকজনের চলাচলও কমে এসেছে। শীতের প্রকোপে মানুষের যেন দিশেহারা অবস্থা।

নদীভাঙন কবলিত এলাকার অধিকাংশ গরিব অসহায় মানুষ এসে সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধের আশেপাশের এলাকায় আশ্রয় নিয়েছে। তাদের থাকার ঘরগুলাের মধ্যে কনকন করে হিমেল হাওয়া প্রবেশ করছে। শীত নিবারণের জন্য লেপ তাে দূরের কথা, একটি পাতলা কম্বলও নেই কোনাে কোনাে ঘরে। অনেকেরই স্ত্রী-পুত্র-কন্যা নিয়ে একই ঘরে বসবাস। দেখে মনে হয় যেন সেই ১৯৭১ সালের শরণার্থী শিবির। শীতের প্রকোপের কারণে অধিকাংশ খেটে খাওয়া মানুষের আয় রােজগার প্রায় অর্ধেকে নেমে এসেছে। অনেক বয়স্ক লােকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিগত ৫০/৬০ বছরেও তারা আবহাওয়ার এমন বৈরী রূপ প্রত্যক্ষ করেনি।

দরিদ্র কৃষকদের আশঙ্কা যে, এরকম আবহাওয়া আরও কিছুদিন থাকলে ব্যাপক ফসলের হানি হবে। ইতােমধ্যে ঘন কুয়াশা শৈত্যপ্রবাহের কারণে ধান কাটা, ধান মাড়াই শীতকালীন সবজির ব্যাপক ক্ষতির কথাও জানালেন তারা। অন্যান্য বছরে শীতকালীন সবজির দাম কমে আসলেও এবার আর তেমন কোনাে লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। সবজির দাম এখনও বেশ চড়া। প্রত্যন্ত চরাঞ্চলের মানুষদের রােজগার প্রায় বন্ধ। এর ওপর শীতবস্ত্রের সংকট তাদেরকে আরও অসহায় করে তুলেছে। বাজারে পুরানাে শীতবস্ত্রের দাম যেমন চড়া, তেমনই অসহায় মানুষদের জন্য সরকারি সাহায্যও অপ্রতুল। তবে সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায় যে, ইতােমধ্যেই চাহিদা অনুযায়ী শীতবস্ত্রের জন্য ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে জরুরি বার্তা প্রেরণ করা হয়েছে তীব্র শীতের প্রকোপে নিদারুণ কষ্ট দুঃসহ অবস্থার মধ্যে দিনাতিপাত করছে অসংখ্য দুস্থ, নিঃস্ব ছিন্নমূল মানুষ। ঠান্ডাজনিত রােগের প্রাদুর্ভাবও বেড়েছে। পরিস্থিতিতে তাদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করা অত্যন্ত প্রয়ােজন।

শীতের প্রকোপের হাত থেকে বাঁচার জন্য নিরন্তর সংগ্রাম করে যাচ্ছে অসংখ্য অসহায় মানুষ। প্রকৃতির ওপর দায় চাপিয়েই তারা নিজের মনকে সান্ত্বনা দিচ্ছে। পরিস্থিতি মােকাবেলায় জাতিধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানাে উচিত বিপদগ্রস্ত অসহায় মানুষের দিকে হাত বাড়িয়ে দেওয়া মানবতার উস্কৃষ্ট নিদর্শন। তাই শীতার্ত মানুষের দুঃসহ জীবনে কিছুটা স্বস্তি দিতে আমাদের সকলকেই এগিয়ে আসতে হবে।


Share This Post

Post Comments (0)



Latest Post

Suggestion or Complain

সংবাদ শিরোনাম