তােমার কলেজে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নবীনবরণ উদযাপনের বিবরণ দিয়ে বন্ধুর নিকট পত্র লেখ।

তােমার কলেজে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নবীনবরণ উদযাপনের বিবরণ দিয়ে বন্ধুর নিকট পত্র লেখ।

২৬ শাহবাগ, ঢাকা।

১৫ই জুলাই ২০১৯

সুপ্রিয় বিমল

আমার হৃদয়েষ্ণ প্রীতি প্রাণঢালা শুভেচ্ছা নিও। আশা করি, সপরিবারে ভালাে আছ। তােমার চিঠি পেয়েছি দিন সাত-আট হলাে। কিন্তু উত্তর দিতে বিলম্ব হওয়ায় আমি একটুও দুঃখিত নই। কেননা আমাদের কলেজে গতকাল সমাপ্ত হওয়া নবীনবরণ অনুষ্ঠান নিয়ে বিগত কয়েকদিন আমার খুবই ব্যস্ততার ভিতর দিন কেটেছে। আজ না হয় তােমাকে তার কিছু বিবরণ শােনাই।

অধ্যক্ষ স্যারের নির্দেশে নবীনবরণ উদযাপন কমিটি গঠিত হয়। দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের পক্ষ থেকে আমাদের কয়েকজনের ওপর অনুষ্ঠান পরিচালনার জন্য বিশেষ ভার অর্পণ করা হলাে। যথার্থভাবে সকল প্রস্তুতি শেষে এলাে সেই কাঙ্ক্ষিত দিন। নবাগত ছাত্রছাত্রীসহ কলেজের অন্যান্য শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে কলেজ অডিটোরিয়াম ভরে গেল। সকাল দশটায় অনুষ্ঠান শুরু হলাে। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় জেলা প্রশাসক। এছাড়া স্থানীয় গুণী শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শ্রদ্ধেয় অধ্যক্ষ স্যার। অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে কলেজ ভবনসহ অডিটোরিয়াম মঞ্চ নান্দনিক সাজে সাজানাে হয়েছিল তা এক কথায় অনবদ্য।

পবিত্র ধর্মগ্রন্থ পাঠের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। তারপর নবীনবরণ শুভেচ্ছা ভাষণপাঠ করে শােনায় দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র অনিন্দ্য ব্যানার্জী। নবীনদের পক্ষ থেকে প্রতিভাষণপাঠ করে শােনায় লাবণী রায়। প্রতিভাষণ পাঠকালীন গােটা অডিটোরিয়ামে পিনপতন নীরবতা বিরাজ করছিল। অতঃপর নবীনদের উদ্দেশ্যে তাৎপর্যপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেন শ্রদ্ধেয় অধ্যক্ষ মহােদয়। তিনি তার বক্তব্যে শিক্ষাক্ষেত্রে কলেজের ঐতিহ্য সুনাম রক্ষার দায়িত্বের কথা আমাদের স্মরণ করিয়ে দেন। পাশাপাশি শৃঙ্খলা, নিয়মানুবর্তিতা, অধ্যবসায়এসব বিষয়ে এবং আমাদের করণীয় সম্পর্কে নানা উপদেশ দেন। শেষে সবাইকে আলােকিত মানুষ হওয়ার উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে তিনি তাঁর বক্তব্যের ইতি টানেন। তবে অধিকাংশ বক্তার কণ্ঠে নবীনদের সম্ভাবনা নিয়ে যেমন আশাবাদ ধ্বনিত হলাে তেমনই ধ্বনিত হলাে রাজনীতিতে না জড়ানাের জন্য শিক্ষার্থীদের প্রতি আকুল আহ্বান। আলােচনা অনুষ্ঠানে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে আমি বক্তৃতাদানের জন্য মনােনীত হয়েছিলাম। প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও মঞ্চে দাঁড়িয়ে উপস্থিত ব্যক্তিবর্গের সামনে কথা বলতে প্রথমে একটু স্নায়ুবিক দুর্বলতা কাজ করছিল। পরে অবশ্য সে দুর্বলতা কাটিয়ে সুন্দরভাবেই বক্তব্য শেষ করতে পেরেছি। তবে সর্বোপরি কথা হলাে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় নবীনবরণ অনুষ্ঠানটি সত্যিই অনেক সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয়েছে। অনেক মেধাবী প্রতিভাবান নতুন মুখ এসেছে এবারের নবীন শিক্ষার্থীদের মাঝে। তাদের সঙ্গে পরিচিত হয়ে আমি মুগ্ধ হয়েছি।

আজ আর নয়। তােমার বাবা-মাকে আমার প্রণাম দিও। অনেক ভালাে থেকো বন্ধু। তােমার চিঠির প্রতীক্ষায় থাকলাম।

ইতি

তােমার প্রীতিমুগ্ধ।

শিবলু

(পত্র লেখা শেষে খাম এঁকে খামের ওপরে ঠিকানা লিখতে হয়)


Share This Post

Post Comments (0)



Latest Post

Suggestion or Complain

সংবাদ শিরোনাম